ঈদে নাতনিদের নিয়ে ‘পোলাও-মাংস’ খেলেন খালেদা জিয়া

২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাবন্দি হওয়ার পর থেকে টানা চারটি ঈদ কারাগারেই করতে হলো বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে। এর মধ্যে ঈদের দিন সাক্ষাতের অনুমতি চেয়েও কখনও কখনও কারাফটক থেকে ফিরতে হয়েছে বিএনপি নেতাদের। এবার তো অনুমতিই মেলেনি।

তবে পরিবারের সদস্য ও স্বজনদের ক্ষেত্রে সাক্ষাতের অনুমতি মিলেছে। এর ফলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে বন্দিদশায় চিকিৎসাধীন থাকার পরও গেল ঈদের মতো এবারও ঈদের দিনে কিছুটা সময় পুত্রবধূ, ভাই ও নাতনিদের সঙ্গে কাটানোর সুযোগ হয়েছে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর।

এবার দুই নাতনির সঙ্গে কোরবানির ঈদ উদযাপন করেছেন খালেদা জিয়া। সোমবার দুপুর ২টার দিকে বিএসএমএমইউ’তে যান বেগম জিয়ার স্বজনরা। এর পর হাসপাতালে দুই নাতনিকে পাশে বসিয়ে বাসা থেকে রান্না করে আনা খাবার খান বিএনপি চেয়ারপারসন।

স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ঈদের দিন দুই নাতনিকে কাছে পেয়ে খুশি হয়েছেন অসুস্থতার কারণে কারা তত্ত্বাবধানে হাসপাতালে থাকা বিএনপি চেয়ারপারসন।

ঈদ উপলক্ষে কারা কর্তৃপক্ষ পরিবারের ৬ সদস্যকে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেয়। দুপুরের দিকে খালেদা জিয়ার প্রয়াত ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথি, কোকোর দুই কন্যা জাহিয়া রহমান ও জাফিয়া রহমান ছাড়াও বেগম জিয়ার ভাই শামীম ইস্কান্দার, স্ত্রী কানিজ ফাতেমা ও তাদের ছেলে অভিক ইস্কান্দার বিএসএমএমইউ’তে প্রবেশ করেন।

হাসপাতালে গিয়ে শুরুতেই কোকোর দুই মেয়ে দাদির পা ছুঁয়ে সালাম করেন। এসময় বেগম জিয়াও তাদের বুকে জড়িয়ে আদর করেন।

এদিকে ঈদ উপলক্ষে কোকোর স্ত্রী সিঁথি বাসা থেকে শাশুড়ির জন্য পোলাও, মাংসের রেজালা, আলুর চপ, সবজি, জর্দা, দুধ-সেমাই ও মিষ্টি প্রস্তুত করে নিয়ে যান। হাসপাতালে খালেদা তাঁর দুই নাতনিকে পাশে বসিয়ে বাসা থেকে আনা খাবার খান। এসময় গৃহকর্মী ফাতেমা বেগমও ঈদের বেগম জিয়ার সঙ্গে ঈদের খাবার খান।

হাসপাতালের বিশেষ সূত্র জানান, ঈদের দিনটিতে পরিবারের সদস্যদের কাছে পেয়ে কিছুটা সময় হলেও ভালো কাটিয়েছেন খালেদা জিয়া। প্রায় দুই ঘণ্টা স্বজনদের সঙ্গে অন্যরকম এক সময় কাটান সাবেক তিনবারের প্রধানমন্ত্রী। এসময় তিনি অসুস্থ অবস্থায়ও দেশবাসীর খোঁজ নেন, দেশের সার্বিক পরিস্থিতি ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সম্পর্কে জানতে চান।

এদিকে বিএসএমএমইউতে বেগম জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে মহিলা দলের নেত্রী সুলতানা আহমেদ, সাবিনা ইয়াসমীন ও ছাত্রদলের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী সেখানে গেলেও অপেক্ষা করে তাদের ফিরে আসতে হয়েছে। অন্যদিকে দলের চেয়ারপারসনের সঙ্গে ঈদের দিনে সাক্ষাতের অনুমতি চেয়েও তা পায়নি বিএনপি।

প্রসঙ্গত, দুর্নীতির দুই মামলায় ১৭ বছরের সাজা নিয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফ্রেব্রুয়ারি থেকে কারাবন্দি আছেন খালেদা জিয়া। গত ১ এপ্রিল অসুস্থতার কারণে তাঁকে বিএসএমএমইউ’র ৬ তলার ৬২১ নম্বর কেবিনে বন্দিদশায় চিকিৎসার জন্য আনা হয়। এর পর থেকে তিনি সেখানেই আছেন।

ব্রেকিংনিউজ

SHARE